গ্রামীণফোন ফোরজি মডেম অফার ১৪জিবি ফ্রি! প্রোলিংক ফোরজি এলটিই মডেম এবং ফোরজি এলটিই ওয়াইফাই হটস্পট-রাউটার

গ্রামীণফোন ফোরজি মডেম অফার ১৪জিবি ফ্রি!
প্রোলিংক ফোরজি এলটিই মডেম এবং ফোরজি এলটিই ওয়াইফাই হটস্পট-রাউটার

প্রোলিংক PLE902 4G মডেম ৩,৯৯৯ টাকা
প্রোলিংক PRT7011L-A 4G LTE ওয়াইফাই হটস্পট ৪,৯৯৯ টাকা

গ্রামীণফোন-ফোরজি-মডেম-অফার-১৪জিবি-ফ্রি-প্রোলিংক-ফোরজি-এলটিই-মডেম-এবং-ফোরজি-এলটিই-ওয়াইফাই-হটস্পট-রাউটার

উপরের যে কোন ডিভাইস কিনলে গ্রামীনফোন গ্রাহকরা নিচের ক্যাম্পেইন অফার উপভোগ করবেনঃ

ট্যাগিংয়ের জন্য
ট্যাগিংয়ে ২জিবি ইন্টারনেট, ৭ দিন মেয়াদ।

ডাটা বান্ডেল অফারঃ

  • ২জিবি ইন্টারনেট (২৮ দিন মেয়াদী) ৩৩৭ টাকায় (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত)কিনলে গ্রাহক পাচ্ছেন ফ্রি ২জিবি ইন্টারনেট (৭ দিন মেয়াদী)
  • গ্রাহক ৩ মাসে সর্বোচ্চ ৬ বার এই অফার নিতে পারবেন।
  • এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে গ্রাহক ১৪জিবি পর্যন্ত ফ্রি ইন্টারনেট উপভোগ করতে পারবেন।


বান্ডেল অফার ক্রয় করতে:

  • গ্রাহক ১ জিবি ৭৯ টাকায় ৭ দিন মেয়াদী (সকল চার্জ অন্তর্ভুক্ত) কিনতে পারবেন।  
  • গ্রাহক ৩ মাসে সর্বোচ্চ ৬ বার এই অফার নিতে পারবে।



ক্যাম্পেইন অফার অ্যাক্টিভেশন করার নিয়মাবলীঃ

ট্যাগিংয়ের জন্যঃ
গ্রাহককে 4GCPE  টাইপ করে এসএমএস করতে হবে 5050 নম্বরে (কোনো চার্জ ছাড়াই)

ডাটা বান্ডেল অফারের জন্য:
গ্রাহককে CPE4GB  টাইপ করে এসএমএস করতে হবে 5050 নম্বরে (কোনো চার্জ ছাড়াই)

চেক পয়েন্টঃ
Check  CPE4GB  টাইপ করে এসএমএস করতে হবে 5050 নম্বরে (কোনো চার্জ ছাড়াই)

শর্তাবলীঃ

  • কি-ওয়ার্ডগুলো কেইস সেনসেটিভ নয়।
  • অফারগুলো নির্দিষ্ট মডেলের ডিভাইসের জন্য প্রযোজ্য।
  • নতুন-পুরনো সকল প্রিপেইড ও পোস্টপেইড গ্রাহকের জন্য এই অফারটি প্রযোজ্য।
  • ডিভাইস গুলোতে 4G এক্সপেরিয়েন্স করার জন্য 4G নেটওয়ার্কের মধ্যে থাকতে হবে এবং 4G এনাবলড সিম থাকতে হবে।
  • গ্রাহক *121*3232# গ্রাহক নম্বর ডায়াল করে জেনে নিতে পারবেন যে সিমটি 4G এনাবলড কি না।
  • অফারটি স্কিটো গ্রাহকদের জন্য প্রযোজ্য নয়।
  • ট্যাগিং অপশনটি ২ মাসের জন্য প্রযোজ্য, তবে কোনো গ্রাহক ৫৯তম দিনে ট্যাগড হলে তিনি পরবর্তী ৩ মাসে সর্বোচ্চ ৬ বার অফারটি নিতে পারবেন।
  • ভ্যালিড ট্যাগিংয়ের জন্য গ্রাহককে ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে।
  • ব্যর্থ হলে, গ্রাহককে ডিভাইসটি রি-স্টার্ট করতে হবে এবং আবার ট্যাগিং রিকোয়েস্ট পাঠাতে হবে, অথবা ১২১ নম্বরে কল করে গ্রামীণফোনের কাস্টমার সার্ভিসে যোগাযোগ করতে হবে।
  • ভ্যালিড ট্যাগিং শেষে পরবর্তীতে পাঠানো নির্দেশনাবলি গ্রাহকদেরকে অনুসরণ করতে হবে।
  • বোনাস ব্যাল্যান্স চেকঃ প্রিপেইড এবং পোস্টপেইড গ্রাহকরা তাদের বোনাস এবং ক্রয়কৃত ইন্টারনেট ব্যাল্যান্স *121*1*2# নম্বরে ডায়াল করে জেনে নিতে পারবেন।
  • ফ্রি অফারটি চালু হতে সর্বোচ্চ ২৪ ঘণ্টা সময় প্রয়োজন।
  • ইন্টারনেট ভলিউম শেষ হয়ে গেলে, মেয়াদ থাকাকালীন ১.২২ টাকা/এমবি (ভ্যাট + এসসি+ এসডি-সহ) হারে সর্বোচ্চ ২৪৪ টাকা পর্যন্ত চার্জ প্রযোজ্য হবে।
  • মেয়াদ থাকা অবস্থায় একই ডাটা প্যাক (Xটাকায় Xজিবি) পুনরায় ক্রয় করলে নতুন ডাটা ব্যালেন্সের সাথে আগের ডাটা যুক্ত হবে।
  • ইন্টারনেট অফারটি বন্ধ করতে #121*3041# নম্বরে ডায়াল করতে হবে।
  • ভ্যালিড ট্যাগিংয়ের জন্য সকল নতুন এবং অব্যবহৃত সিম কার্ডের ক্ষেত্রে, প্রথমে নম্বরটি চালু করে নতুন ক্রয় করা ডিভাইসে সিম প্রবেশ করাতে হবে।
  • একই গ্রাহক একাধিকবার ট্যাগিং করলে প্রথম ভ্যালিড ট্যাগিং বিবেচনায় এনে ক্যাম্পেইনের সুবিধাসমূহ প্রযোজ্য করা হবে এবং ভ্যালিড ট্যাগিং-এর পর বান্ডেল বহাল থাকবে।
  • অটো রিনিউয়াল ফিচার থাকছে না, তাই কোনো গ্রাহক যদি ৩০ দিনের মধ্যে অফারটি রিনিউ না করেন তাহলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডিঅ্যাক্টিভেটেড হয়ে যাবে।
  • উপরে উল্লেখিত প্ল্যানটি সীমিত সময়ের প্রোমোশনাল অফার এবং পরবর্তী ঘোষণা দেয়ার আগ পর্যন্ত প্রযোজ্য থাকবে।
  • শুধুমাত্র বৈধ এবং গ্রহণযোগ্য IMEI-এর জন্য এই বান্ডেল অফারটি প্রযোজ্য হবে।
  • টাচ পয়েন্ট থেকে ডিভাইস সেলসের ৩ দিন পূর্বে থেকে ডিভাইস ভেন্ডরের শেয়ার করা IMEI লিস্টের উপর বান্ডেল অফারের প্রযোজ্যতা নির্ভর করে।
  • গ্রামীণফোনের সাথে IMEI শেয়ার না করা ডিভাইসের ক্ষেত্রে অফার সংক্রান্ত সমস্যার জন্য গ্রামীণফোন দায়ী থাকবে না।
  • অফারটি শুধুমাত্র ডিভাইস ভেন্ডর বা অথরাইজড ডিস্ট্রিবিউটরদের ভেরিফাইড হ্যান্ডসেটের জন্য প্রযোজ্য। সেটটি আসল কিনা- এসংক্রান্ত যেকোনো বিতর্কের দায় ডিভাইস ভেন্ডর বা অথরাইজড ডিস্ট্রিবিউটরের।
  • ক্রেতাদের কাছে বিক্রিত ডিভাইস বৈধভাবে আমদানিকরা হয়েছে এবং তা বান্ডেল অফারের জন্য প্রযোজ্য, সেটা নিশ্চিত করবেন ডিভাইস ভেন্ডরের রিটেইলারগণ।
  • ক্যাম্পেইন শেষে ট্যাগিং সংক্রান্ত কোনো অভিযোগ গ্রহণযোগ্য হবে না।

SHARE THIS

Author:

Previous Post
Next Post